বারবার বেআইনি নির্মাণ করেন Sonu, আদালতে নালিশ BMC-র


নিজস্ব প্রতিবেদন : সোনু সুদ স্বভাবসিদ্ধ ভাবেই বেআইনি নির্মাণের মত অপরাধ বারবার করেন। বুধবার বোম্বে হাইকোর্টকে এমনটাই জানাল বৃহন্নমুম্বই পুরসভা। এর আগেও দুবার সোনু সুদের জুহুর আবাসনে বেআইনি নির্মাণ ভেঙে দেওয়া হয়েছে। তারপরেও তিনি ফের একই কাজ করেছেন বলে হলফনামায় জানাল BMC। 

গত অক্টোবরে সোনুর বিরুদ্ধে পুলিসের কাছে বেআইনি নির্মাণের অভিযোগ করে BMC। অভিযোগ ছিল, অনুমতি ছাড়া জুহুতে সোনু তাঁর ৬তলা শক্তিসাগর অ্যাপার্টমেন্টটি হোটেলে পরিণত করেছেন। এই অভিযোগের বিরুদ্ধে প্রথমে নগর দায়রা আদলতের দ্বারস্থ হন সোনু সুদ। যদিও সোনুর আবেদন খারিজ করে দেয় নিম্ন আদালত। এরপরেই বোম্বে হাইকোর্টে পিটিশন দাখিল করেন সোনু। বুধবার ছিল সেই মামলার শুনানি। হলফনামা দিয়ে নিজেদের বক্তব্য আদালতকে জানাল BMC।

যদিও তাঁর বিরুদ্ধে আনা সমস্ত অভিযোগ ইতিমধ্যেই খারিজ করেছেন সোনু সুদ। তিনি বলেন, ওই বাড়িকে হোটেলে পরিণত করার জন্য তিনি মহারাস্ট্র কোস্টাল জোন ম্যানেজমেন্ট অথরিটির কাছে নিয়ম মেনেই অনুমতি নিয়েছেন। সোনু আরও জানান,মহারাস্ট্র কোস্টাল জোন ম্যানেজমেন্ট অথরিটির অনুমতি নিয়েছেন কিন্তু করোনা পরিস্থিতির জেরে এখনও সেই অনুমতি পত্র তাঁর হাতে এসে পৌঁছয়নি। এর মধ্যে কোনও গরমিল নেই। আইনের বাইরে বেরিয়ে তিনি কোনও কাজ করেন না বলে স্পষ্ট জানান অভিনেতা। অভিনেতার কথায়, কোভিড চলাকালীন ওই হোটেলে করোনা যোদ্ধাদের জন্য তিনি খুলে দিয়েছিলেন। এখনও যদি তাঁর হাতে অনুমতি পত্র এসে না পৌঁছয়, তাহলে তিনি ফের ওই হোটেলকে বসত বাড়িতে বদলে দেবেন।

প্রসঙ্গত, লকডাউনে পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি ফিরিয়ে খবরের শিরোনামে উঠে আসেন সোনু সুদ। মুম্বই থেকে কর্নাটক কখনও উত্তরপ্রদেশ, ওড়িশা, বিহার বা পশ্চিমবঙ্গ সহ প্রায় সব রাজ্যের শ্রমিকদেরই তিনি নিরাপদে বাড়ি পৌঁছে দেন। তবে শুধু পরিযায়ী শ্রমিকদেরই নয় প্রায় সব রাজ্যের অসহায়, গরিব মানুষদের নানান বিপদে পাশে দাড়িয়েছেন সোনু সুদ। দেশবাসীর কাছে হয়ে উঠেছে ‘মাসিহা’। এমনকী, শীত পড়লে উত্তরপ্রদেশের প্রত্যন্ত গ্রামের অসহায় মানুষরা যাতে সুস্থ থাকেন, তার ব্যবস্থাও করেন সোনু। তবে এবার সম্পূর্ণ নেতিবাচক কারণে খবরে উঠে এলেন অভিনেতা।