‘দেশের প্রয়োজনে আমি আছি’, এবার নিজের পাশে দেশকে চাইলেন কঙ্গনা! কিন্তু কেন?


হাইলাইটস

  • মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহানের সঙ্গে দেখা করে তাঁকে ‘লাভ জিহাদ’ বিরোধী আইন আনার জন্য ধন্যবাদও জানালেন তিনি।
  • মুম্বই পুলিশের কাছে হাজিরা দিতে হয়েছে বলে গত শুক্রবার সকালেই ‘টিম কঙ্গনা’ টুইটারে একটি ভিডিয়ো পোস্ট করে।
  • সদ্যই মধ্যপ্রদেশে পাশ হয়েছে ‘লাভ জিহাদ’ বিরোধী আইন। তাতে ভিনধর্মে বিয়ের জন্য ধর্ম পরিবর্তনে চাপ দেওয়াকে গুরুতর অপরাধ দেখানো হয়েছে।

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: গত অক্টোবর মাসে হরিয়ানার হিন্দু কলেজ ছাত্রী খুনের ঘটনার পরই ‘লাভ জিহাদ‘ নিয়ে গর্জে উঠেছিলেন বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। এবার মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহানের সঙ্গে দেখা করে তাঁকে ‘লাভ জিহাদ’ বিরোধী আইন আনার জন্য ধন্যবাদও জানালেন তিনি। উল্লেখ্য, উত্তরপ্রদেশের মতো মধ্যপ্রদেশেও পাশ হয়েছে ওই আইন। আর এই সুযোগে আরও একবার নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে দিলেন কঙ্গনা। শিবরাজকে তিনি বলেন, ‘এই ধরনের আইনের খুব প্রয়োজন ছিল। এর সাহায্যে ভুয়ো বিয়ের হাত থেকে আক্রান্তদের বাঁচানো যাবে। মধ্যপ্রদেশে আসতে পেরেছি ভেবেই আনন্দ লাগছে।’ অপরদিকে, মুম্বই পুলিশের কাছে হাজিরা দিতে হয়েছে বলে গত শুক্রবার সকালেই ‘টিম কঙ্গনা’ টুইটারে একটি ভিডিয়ো পোস্ট করে। সেখানে কঙ্গনাকে অভিযোগ করতে শোনা যাচ্ছে, ‘কেন আমাকে মানসিক ভাবে নিগ্রহ করা হচ্ছে? এখন তো ব্যাপারটা শারীরিক নির্যাতনের পর্যায়ে চলে গিয়েছে। এর উত্তর আমি চাই জাতির থেকে। দেশের প্রয়োজনে আমি পাশে থেকেছি। এ বারই আমি চাই দেশ আমার পাশে থাকুক।’

সদ্যই মধ্যপ্রদেশে পাশ হয়েছে ‘লাভ জিহাদ’ বিরোধী আইন। তাতে ভিনধর্মে বিয়ের জন্য ধর্ম পরিবর্তনে চাপ দেওয়াকে গুরুতর অপরাধ দেখানো হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণে ১০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ডের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে নতুন আইনে। আর এরই মধ্যে নিজের নতুন ছবি ‘ধক্কড়’-এর সদস্যদের সঙ্গে মধ্যপ্রদেশ যান কঙ্গনা। এরপরই তিনি দেখা করেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে। তাঁকে বলিউড অভিনেত্রী বলেন, ‘মনে হচ্ছে পরিবারের কোনও সদস্যের সঙ্গে অনেকদিন পর দেখা হয়েছে।’

এদিকে, গত শুক্রবারই বান্দ্রা পুলিশ স্টেশনে হাজিরা দিয়েছেন কঙ্গনা। তাঁর বিরুদ্ধে একটি রাষ্ট্রদ্রোহিতা মামলা দায়ের হয়েছে। কঙ্গনার সঙ্গে ছিলেন বোন রঙ্গোলি চাণ্ডেলও। তাঁদের দু’জনকে প্রায় দু’ঘণ্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এর আগে বোম্বে হাই কোর্ট নির্দেশ দিয়েছিল কঙ্গনা আর তাঁর বোন যেন পুলিশের সামনে হাজিরা দেন। তবে আদালত একইসঙ্গে একটি অন্তবর্তী নির্দেশ দিয়েছে, যাতে কঙ্গনাকে গ্রেপ্তার না করা হয়।

আরও পড়ুন: নন্দন হাউসফুল, ফের সিনেমার দুয়ারে দর্শক

কঙ্গনা এই মুহূর্তে ওয়াই প্লাস নিরাপত্তা পেয়ে থাকেন। শুক্রবার দুপুর একটা নাগাদ সিআরপিএফ জওয়ানদের সুরক্ষা বেষ্টনিতে উপস্থিত হন বান্দ্রা পুলিশ স্টেশনে। গত অক্টোবর মাসে বান্দ্রাতেই কঙ্গনার বিরুদ্ধে একটি এফআইআর দায়ের হয়েছিল। কঙ্গনা আর তাঁর বোন এরপর বোম্বে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন এফআইআর প্রত্যাহারের দাবিতে। কিন্তু আদালতের নির্দেশেই তাঁকে হাজির দিতে হল। আদালতের নির্দেশে এও বলা হয়েছিল, কঙ্গনা আর রঙ্গোলী সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘প্ররোচনামূলক’ মন্তব্য আর পোস্ট যেন না দেন। কিন্তু শুক্রবার সকালে কঙ্গনার এই টুইটে সমস্যা হতে পারে, মনে করছেন কেউ-কেউ।

এই সময় ডিজিটাল এখন টেলিগ্রামেও। সাবস্ক্রাইব করুন, থাকুন সবসময় আপডেটেড। জাস্ট এখানে ক্লিক করুন