চকোলেটই আপনার প্রথম প্রেম? জানুন কী কী উপকার


এই সময় জীবনযাপন ডেস্ক: চকোলেটের সঙ্গে যোগ রয়েছে সরাসরি হৃদয়ের। সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি গবেষণায় দেখা গিয়েছে, প্রায় ৪৫ শতাংশ মহিলা বলেছেন তাঁরা চকোলেট ছাড়া বাঁচার কথা ভাবতেই পারেন না। এমনকী গবেষণা বলছে চকোলেট শরীরের জন্যেও খুব ভালো। বেশিরভাগ সম্পর্কের সূত্রপাত কিন্তু চকোলেট দিয়েই। এমনকী বাড়িতে নতুন কোনও অতিথি এলেও তাঁর হাতে থাকে একটা চকোলেট। আর চকোলেট এমন খাবার যাতে কারোর কোনও না নেই। সবাই দিব্য হাসিমুখে খেয়ে ফেলেন। প্রথম ডেটেই প্রেমিকাকে যদি একটা চকোলেট উপহার দিতে পারেন, তাহলে আপনার প্রেম কিন্তু পাকা। কোনও কারণে আপনার উপর রাগ করেছে প্রেমিকা? একটা চকোলেট হাতে ধরিয়ে সরি বলুন, সব রাগ গলে জল হয়ে যাবে। এছাড়াও চকোলেটের সঙ্গে সম্পর্কের বিশেষ একটা বন্ধন রয়েছে। যেমন চকোলেট শরীর ও মন দুই ভালো রাখে। ওজন কমানোর ক্ষেত্রে চকোলেটের থেকে ভালো আর কিছুই নেই। তেমনই চকোলেট কিন্তু মানুষের ব্যবহারেও পরিবর্তন আনে। জানুন চকোলেটের সঙ্গে আপনার সম্পর্কের গতিবিধি কেমন হতে পারে। বিশেষজ্ঞরা অবশ্য বলছেন আজীবন চকোলেটের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে গেলে সকালে উঠে শরীরচর্চা, কিংবা সাইকেল চালানো কিছু একটা করতেই হবে।

সম্পর্কের শুরু হোক চকোলেটেই

খাওয়া দাওয়ার সঙ্গে সম্পর্কের বিশেষ একটা যোগ রয়েছে। প্রথম ডেট শুরু হয় এক কাপ চায়ে কিংবা কোনও কফিশপে। আর তাই খাবার মনের উপরও একটা প্রভাব ফেলে। তাও শরীরের কথা মাথায় রেখে ডার্ক চকোলেট খাওয়ার কথাই বলছেন বিশেষজ্ঞরা। শরীরের পক্ষেও যেমন উপকারী তেমনই কোশকেও অন্যান্য ক্ষতিকর টক্সিনের হাত থেকে রক্ষা করে। সেই সঙ্গে প্রেম জমে ওঠারও একটা ইঙ্গিত কিন্তু দেয় চকোলেট।

হার্ট ভালো রাখে

প্রেমের সঙ্গে যখন সরাসরি হার্টের যোগ তখন তো হার্টের সুরক্ষার কথা প্রথমেই ভাবতে হবে। আর তাই হৃদয়ের কথা মাথায় রেখেই চকোলেট খান। প্রিয়জনকে উপহারও দিন চকোলেট। সেই সঙ্গে স্ট্রোক, হার্টের সমস্যা এসব থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

প্রেমে ঝামেলা, সমস্যা এসব তো থাকেই। নইলে আর ভালোবাসা বলে কিছু থাকে না। কিন্তু তাই বলে প্রেমিকের সঙ্গে রাগ করে দুবেলা খাওয়া বন্ধ করে দেন? এতে কিন্তু আখেরে ক্ষতি আপনারই। তাই রাগ করলেও একটুকরো চকোলেট খান। মাথা ঠান্ডা হবে। প্রেমিকরাও কিন্তু প্রেমিকার রাগ ভাঙাতে অবশ্যই চকোলেট দেবেন। এতে তাঁদের শরীরও ভালো থাকবে।

ডায়াবিটিসের সমস্যা দূর হয়

ভালোবাসায় চিনি একটু বেশিই থাকে। কিন্তু রক্তে চিনির পরিমাণ বাড়তে দেওয়া চলবে না। সবসময় রাখুন নিয়ন্ত্রণে। আর তাই প্রিয়জনকেও উপহার দিন চকোলেট। নিজেও খান। হার্টের সঙ্গে গড়ে উঠবে সুসম্পর্ক।

মস্তিষ্কের কার্যক্রমতা নিয়ন্ত্রণ করে

ডার্ক চকোলেটে থাকে ফ্ল্যাভোনলস। যা মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা নিয়ন্ত্রণ করে। সেই সঙ্গে মনে রাখার ক্ষমতাও বাড়ে। আর প্রেম করতে গেলে কিছু কথা তো মাথায় রাখতেই হবে। অত ভুলে গেলে কি আর চলবে! ডার্ক চকোলেট কিন্তু রক্তপ্রবাহও ঠিক রাখে। পিটুইটারির যাবতীয় খেলা কিন্তু নিয়ন্ত্রণ করে মস্তিষ্কই। তাই একে চটালে মোটেই চলবে না।