খবরের কাগজে অমলেট মুড়ে শ্যুটিংয়ে ছুটত Hrithik, এখনও একইরকম আছে : Rakesh Roshan


নিজস্ব প্রতিবেদন : ১০ জানুয়ারি, শনিবার ৪৭ এর জন্মদিন সেলিব্রেট করছেন বলিউডের গ্রিক গড (Greek God) হৃত্বিক রোশন (Hrithik Roshan)। সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ছেলের জন্মদিনে ছোট্ট হৃত্বিকের নানান কথা তুলে ধরলেন রাকেশ রোশন (Rakesh Roshan)। তাঁর কথায় উঠে এল পুরনো স্মৃতি, ছোট্ট হৃত্বিকের নানান কথা। রাকেশ রোশনের কথায়, কেরিয়ারের শুরুর দিকে হৃত্বিক যেমন পরিশ্রমী ছিলেন, এখনও ঠিক তেমনিই আছেন।  

রাকেশ রোশন জানান, হৃত্বিকের বয়স যখন মাত্র ৯, তখনই প্রথম শিশুশিল্পী হিসাবে অভিনয়ে হাতেখড়ি হয়। ছবির নাম ছিল ‘ভগবান দাদা’। ছবির পরিচালক ছিলেন রাকেশ রোশনের শ্বশুরমশাই জে ওম প্রকাশ। ‘ভগবান দাদা’ ছবির জন্য নির্বাচিত শিশুশিল্পী হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ায় হৃত্বিককে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন পরিচালক। রাকেশ রোশনের কথায়, তিনি অবশ্য প্রথমে চাননি ছেলে অভিনয় করুক। তাঁর ধারণা ছিল হৃত্বিক অভিনয় করতে পারেন না। তবে প্রথম ছবিতে শিশুশিল্পী হিসাবেই প্রথমবার সকলকে চমকে দিয়েছিলেন হৃত্বিক।

রাকেশ রোশনের কথায়, ”ভগবান দাদা ছবিতে রজনীকান্ত, শ্রীদেবী ও আমি কেন্দ্রীয় ভূমিকায় অভিনয় করেছিলাম। হৃত্বিক যখন তাঁর প্রথম শট শ্রীদেবীর সঙ্গে দিচ্ছে আমি ভীষণ নার্ভাস হয়ে গিয়েছিলাম। পিলারের পিছনে লুকিয়ে আমি ওর অভিনয় দেখছিলাম। ও কারোর সঙ্গে কথা বলছিল না, আমি ভাবলাম ওর হয়ত ভালো লাগছে না। তবে যখন ও প্রথম শট দিল তখন সেটা ছিল পারফেক্ট। ক্যমেরা চালু হতেই ও যেন বদলে গেল, তখনই বুঝলাম যে ওর মধ্যে লুকনো অভিনয় দক্ষতা রয়েছে। আর ওর মধ্যে জন্মগত নাচের দক্ষতা ছিলই। শ্যুটিংয়ের পর হৃত্বিক আবারও পড়াশোনায় ব্যস্ত হয়ে পড়ে। তবে আমি আরও অবাক হয়ে যাই যখন ও মৃত্যুর দৃশ্যে অভিনয় করল। একটা ৯ বছরের ছেলে যে মৃত্যু সম্পর্কে জানেই না, সে কীভাবে ওই দৃশ্যে এত নিখুঁত অভিনয় করল!”

রাকেশ রোশন জানান, হৃত্বিককে তিনি জানিয়ে দিয়েছিলেন পড়াশোন না শেষ করলে অভিনয় আসা যাবে না।  ২৪ বছর বয়স না হলে তিনি ছেলেকে সিনেমায় আনবেন না বলে স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন রাকেশ রোশন। তিনি সাক্ষাৎকারে জানান, অভিনয়ে আসার আগে তাঁর ৫টি ছবিতে সহ পরিচালক হিসাবে কাজ করেছেন হৃত্বিক। বাবা রাকেশ রোশনের কথায়,  কেরিয়ারের শুরুর দিকে হৃত্বিক যেমন পরিশ্রমী ছিলেন, এখনও ঠিক তেমনটাই রয়েছেন। শুরুর দিকে ও যেমন সকালে উঠে নিজের অমলেট খবরের কাগজে মুড়ে শ্যুটিংয়ে ছুটত। এখনও ঠিক তেমনটাই আছে। আমার মনে হয় যেকোনও পরিচালক ওকে নিয়ে কাজ করতে খুশি হবে।”